ফেসবুকের জন্য হু'মকি টিকট'ক

দুই বছর আগে বেশি ডাউনলোড করা অ্যাপের পরিমাণে চতুর্থ স্থানে ছিল ফেসবুক। তবে ফেসবুককে ছাড়িয়ে টিকট'ক অ্যাপটি ডাউনলোডের সংখ্যায় এগিয়ে যায়। এদিকে শুধুমাত্র গত বছরই টিকটিককে ছাড়াতে পেরেছে ফেসবুকের মালিকানাধীন প্রতিষ্ঠান হোয়াটসঅ্যাপ। গবেষণা প্রতিষ্ঠান সেন্সর টাওয়ারের সাম্প্রতিক জ'রিপের বরাতে এমন খবর জানিয়েছে মা'র্কেটরিয়ালিস্ট ডট'কম।
জ'রিপ অনুযায়ী, গত বছর বেশি ডাউনলোড করা অ্যাপের তালিকার দ্বিতীয় স্থানে ছিল চীনা প্রতিষ্ঠান বাইটড্যানে্সরের টিকট'ক। টিকট'ক ও ফেসবুক বিজ্ঞাপনের অর্থে চালিত প্রতিষ্ঠান। বিজ্ঞাপনদাতা জোগাড় করতেই তাদের মধ্যে প্রতিযোগিতা চলছে। আর প্রতিযোগিতা তীব্র আকার ধারণ করেছে।

এদিকে ব্যবহারকারীর সংখ্যা বাড়ায় ফেসবুকের বিজ্ঞাপনদাতা ও কর্মীদেরও নানা অফার দিয়ে নিয়োগ দিচ্ছে টিকট'ক। এর মধ্যে ফেসবুকের বিজ্ঞাপন বিভাগের অ'ভিজ্ঞ কর্মীরা প্রাধান্য পাচ্ছেন।

ফেসবুক তাদের সবধরনের অ্যাপ মিলিয়ে প্রায় ৬০০ কোটি মানুষের কাছে পৌঁছাতে পারে। এতে প্রতিদ্বন্দ্বীদের তুলনায় বিজ্ঞাপন থেকে বেশি আয় করতে পারে প্রতিষ্ঠানটি। ২০১৯ সালেই তৃতীয় প্রান্তিকেই ১৭ দশমিক ৪ বিলিয়ন মা'র্কিন ডলার বিজ্ঞাপন থেকে আয় করেছে প্রতিষ্ঠানটি। এ তুলনায় টুইটার আয় করেছে মাত্র ৭০ কোটি ২০ লাখ ডলার। পিন্টারেস্ট ও স্ন্যাপ বিজ্ঞাপনের আয় ঘোষণা করেনি। গত বছরের তৃতীয় প্রান্তিকে দুটি প্রতিষ্ঠান রাজস্ব দেখিয়েছে ২৮ কোটি ও ৪৪ কোটি ৬০ লাখ ডলার।

ফেসবুকের তুলনায় টুইটার, পিন্টারেস্ট ও স্ন্যাপের ব্যবহারকারীর সংখ্যা কম। বছরের তৃতীয় প্রান্তিকে দৈনিক মাত্র সাড়ে ১৪ কোটি টুইটার ব্যবহারকারী ছিলেন। এর আগে প্রতি মাসের হিসাবে টুইটার ৩৩ কোটি ব্যবহারকারীর কথা বলা হয়। বছরের তৃতীয় প্রান্তিকে পিন্টারেস্ট মাসিক ২৮ কোটি ব্যবহারকারী থাকার কথা বলেছে। স্ন্যাপ বলেছে তাদের এখন দৈনিক ২১ কোটি ব্যবহারকারী রয়েছে।

অন্যদিকে, শুধু ফেসবুকের মূল নেটওয়ার্ক ব্যবহারকারী ২৪০ কোটি। যার মধ্যে দৈনিক ১৬০ কোটি মানুষ ফেসবুক ব্যবহার করছেন। এর বাইরে মাসিক হোয়াটসঅ্যাপ ব্যবহারকারী রয়েছেন ১৫০ কোটি। মাসিক ইনস্টাগ্রাম ব্যবহারকারী ১০০ কোটি আর দৈনিক ৫০ কোটি ব্যবহারকারী ফেসবুকের ফটো শেয়ারিং করছেন।