নিজের ছয় মাসের শি’শুকে গলা’টিপে মা’রলেন বাবা

নিজের ছয় মাসের – স্ত্রী'’’ ও শাশুড়ির সঙ্গে বিরোধের জেরে নিজের ছয় মাসের ছে'লেকে গলা’টিপে হ’ত্যা করেন বাবা জোবায়ের হোসেন চৌধুরী। গত বৃহস্পতিবার শরীয়তপুর জে’লা আ’দালতে এমন স্বীকারোক্তি দেন তিনি।এর আগে শুক্রবার তার স্ত্রী'’’ আইরিন আক্তার বাদী হয়ে সন্তান ফেরত চেয়ে থা*নায় একটি মা’মলা করেন।মা’মলার তথ্যানুযায়ী, শরীয়তপুর সদরের চন্দ্রপুর ইউপির সন্তোষপুর গ্রামের আনোয়ার হোসেন চৌধুরীর ছে'লে জোবায়ের হোসেন চৌধুরী। ২০১৮ সালের ২ আগস্ট জোবায়েরের সঙ্গে মাদারীপুরের শি'বচরের দক্ষিণ ক্রোকচর গ্রামের আছলাম খার মে’য়ে আইরিন আক্তারের বিয়ে হয়। তাদের দাম্পত্য জীবনে আরফিন নামে একটি ছে'লের জন্ম হয়। এরপরই স্ত্রী'’’ ও শাশুড়ির সঙ্গে নানা বিষয় নিয়ে ঝগড়া বাধে জোবায়েরের।

পরে এ নিয়ে স্বামীর বাড়ি থেকে বাবার বাড়ি চলে যান স্ত্রী'’’। কিন্তু ৩০ ডিসেম্বর বিকেলে স্ত্রী'’’কে ছে'লেসহ মাদারীপুর সদরের ছিলারচর বাজারে দেখা করতে বলেন জোবায়ের। সেই আহবানে সাড়া দিয়ে আইরিন ছে'লে ও বান্ধবী পুতুলকে নিয়ে ছিলারচর বাজারের পাশের একটি নার্সারিতে দেখা করতে যান। তখন নাতিকে দাদা-দাদি দেখতে চান বলে ছে'লেকে দূরে নিয়ে যান জোবায়ের। কিন্তু ছে'লে আরফিনকে আর ফেরত দেননি তিনি।মা আইরিন আক্তার বলেন, ছে'লেকে ফেরত না দেয়ায় থা*নায় একটি মা’মলা করি। ওই মা’মলায় জোবায়েরকে গ্রে’ফতার করা হয়। এরপর ছে'লেকে হ’ত্যার খবর জানতে পারি। আমা’র ছে'লেকে কোল থেকে নিয়ে হ’ত্যা করেছে পাষণ্ড। আমাকে সন্তান হারা করেছে। আমি জোবায়েরের ফাঁ’সি চাই।

মা’মলার ত’দন্তকারী কর্মক’র্তা এসআই মো. বাদল তালুকদার জানান, গ্রে’ফতার জোবায়েরকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য দুইদিনের রি’মান্ড আবেদন করা হয়। পরে রি’মান্ডের অনুমতি পেয়ে তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। সেই জিজ্ঞাসাবাদে নিজের ছে'লেকে হ’ত্যার কথা স্বীকার করেন তিনি। পরে তিনি আ’দালতে জানান, স্ত্রী'’’ ও শাশুড়ির সঙ্গে বিরোধের জেরে গত ৩০ ডিসেম্বর সন্ধ্যায় জাজিরার চরশিমুলিয়া গ্রামের আসমত খার বাঁশবাগানে বসে ছে'লেকে গলা’টিপে হ’ত্যা করেন। এরপর রাতে শি’শুর ম’রদেহটি দীপক দেবনাথের পুকুরে ফেলে দেন।