আজ থেকে শুরু হচ্ছে চলতি বছরের শেষ শৈত্যপ্রবাহ , কত দিন থাকবে জেনে নিন

চলতি বছরের শেষ শৈত্যপ্রবাহ- টানা তিনদিন ধরে দেশের তাপমাত্রার পারদ কমছে। কুয়াশার সঙ্গে বাড়ছে শীতের তীব্রতাও। দিনে প্রায় পুরোটা সময় রোদ থাকলেও বিকেল গড়াতেই শীতের অনুভূতি বাড়ছে।

চলতি মাসে তৃতীয়বারের মতো শৈত্যপ্রবাহ বয়ে যাচ্ছে। তা আজও অব্যাহত থাকতে পারে। এটাই হবে চলতি বছরের শেষ শৈত্যপ্রবাহ।

আবহাওয়া অধিদপ্তর বলছে, রংপুর, রাজশাহী ও ময়মনসিংহ বিভাগসহ টাঙ্গাইল, ফরিদপুর, যশোর, কুষ্টিয়া, বরিশাল, শ্রীমঙ্গল ও রাঙামাটি অঞ্চলের ওপর দিয়ে মৃদু থেকে মাঝারি ধরনের শৈত্যপ্রবাহ বয়ে যাচ্ছে। প্রতিদিনই নতুন নতুন এলাকায় শৈত্যপ্রবাহটি প্রবেশ করছে। ফলে সেখানে বাড়ছে শীতের তীব্রতা। আজ রোববারও শৈত্যপ্রবাহ বয়ে যেতে পারে। তবে দিনের তাপমাত্রা কিছুটা বাড়তে পারে। আগামীকাল সোমবারও শৈত্যপ্রবাহ চলতে পারে। তবে মঙ্গলবার থেকে তাপমাত্রা বাড়তে পারে।

আবহাওয়া অধিদপ্তরের আবহাওয়াবিদ বজলুর রশীদ বলেন, এবারের শীতের মৌসুমে সম্ভবত এটাই শেষ শৈত্যপ্রবাহ। ফেব্রুয়ারি থেকে দেশে সামগ্রিকভাবে তাপমাত্রা বাড়তে থাকবে। বিচ্ছিন্নভাবে দেশের কোথাও কোথাও তাপমাত্রা অনেক কমে যেতে পারে। তবে বিস্তীর্ণ এলাকাজুড়ে শীতের তীব্রতা কমে আসতে পারে।

আবহাওয়া অধিদপ্তরের চলতি সপ্তাহের জন্য দেওয়া পূর্বাভাসে আরও বলা হয়েছে, আগামী তিন দিনের মধ্যে দেশের ভেতরে বড় একটি মেঘমালা প্রবেশ করতে পারে। এতে তাপমাত্রা বেড়ে যেতে পারে। সেই সঙ্গে দেশের কোথাও কোথাও বৃষ্টি হতে পারে। দু-তিন দিন বিচ্ছিন্নভাবে ওই বৃষ্টি চলতে পারে। তারপর ধীরে ধীরে শীত বিদায় নিতে পারে।

অন্য বছরের তুলনায় চলমান শৈত্যপ্রবাহের মাত্রা ও বিস্তৃতি অনেক বেশি। দুই দিন ধরে দেশের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ৭ ডিগ্রি সেলসিয়াসের নিচে নেমে গেছে। গত শুক্রবার সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল কুড়িগ্রামে ৬ দশমিক ৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস। গতকাল শনিবার তা আরও কমে দাঁড়ায় ৬ দশমিক ৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস, পঞ্চগড়ের তেঁতুলিয়ায়। গতকাল রাজধানীর সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল ১২ ডিগ্রি সেলসিয়াস। আজও একই ধরনের তাপমাত্রা থাকতে পারে।

দেশের বিভিন্ন জে’লায় বেড়েছে শীতের তীব্রতা

পঞ্চগড়সহ দেশের বিভিন্ন জে’লায় বেড়েছে শীতের তীব্রতা। এতে ব্যাহত হচ্ছে স্বাভাবিক জীবনযাত্রা। কুয়াশার চাদরে ঢাকা উত্তরের জে’লা পঞ্চগড়ের পথঘাট। সেই সঙ্গে শৈত্যপ্রবাহ বাড়িয়ে দিয়েছে ঠাণ্ডার মাত্রা। দিনের বেলাতেও হেডলাইট জ্বালিয়ে চলছে যানবাহন।

রোববার (২৬ জানুয়ারি) সকাল ৯ টায় জে’লার তেঁতুলিয়ায় ৬ দশমিক ৩ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রা রেকর্ড করেছে আবহাওয়া অফিস। এদিকে, কনকনে ঠাণ্ডা উপেক্ষা করে ঠাকুরগাঁওয়ে জীবিকার তাগিদে বের হচ্ছেন নানা শ্রেণিপেশার মানুষ। শীত থেকে বাঁচতে রাস্তার পাশেই খরকুটো জ্বালান অনেকে।

চাকরিতে প্রবেশের বয়সসীমা ৩২ চেয়ে হাই'কোর্টে রিট

বিসিএস পরীক্ষায় অংশ নিতে প্রার্থীর বয়স, যোগ্যতা ও চাকরিতে আবেদনের বিধিমালা সংক্রান্ত ২০১৪ এর ১৪ বিধির বৈ`ধতা চ্যালেঞ্জ করে হাই'কোর্টে রিট আবেদন করা হয়েছে। এছাড়া রিটে সাধারণ বিসিএসে প্রবেশের সুযোগ ৩২ বছর করার নির্দেশনা চাওয়া হয়েছে।

রোববার পাঁচ শিক্ষার্থীর পক্ষে সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী এবিএম আলতাফ হোসেন এই রিট করেন। তিনি বলেন, আবেদনটির ওপর বিচারপতি এম. ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি মো. মোস্তাফিজুর রহমানের সমন্বয়ে গঠিত হাই'কোর্ট বেঞ্চে শুনানি হতে পারে।

রিটে বিসিএসে বয়স, যোগ্যতা ও চাকরির আবেদনের বিধিমালা ২০১৪ এর ১৪ বিধিকে চ্যালেঞ্জ করা হয়েছে। যারা সাধারণ বিসিএস ক্যাডারে পরীক্ষা দেবে, তারা ৩০ বছর পর্যন্ত পরীক্ষা দিতে পারবে বলে এই বিধিতে বলা আছে।

অথচ বিচারক নিয়োগ সংক্রান্ত বাংলাদেশ জুডিশিয়াল সার্ভিস (বিজিএস) পরীক্ষায় ৩২ বছর পর্যন্ত আবেদনের সুযোগ রয়েছে।আর ওই ১৪ উপবিধি অনুসারে শিক্ষা ক্যাডারেও ৩২ বছর পর্যন্ত পরীক্ষা দেয়ার সুযোগ রাখা হয়েছে।

এই আইনজীবী বলেন, জুডিশিয়াল সার্ভিস কমিশনের পরীক্ষায় প্রার্থীরা ৩২ বছর পর্যন্ত পরীক্ষা দেয়ার সুযোগ পাচ্ছেন। অথচ সাধারণ বিসিএসে অংশগ্রহণকারীরা সেই সুযোগ পাবেন না, এটা সংবিধানের সঙ্গে সাংর্ঘষিক। চাকরিতে প্রবেশে যেন সবার সমান অধিকার নিশ্চিত হয়, রিটে সেটাই দাবি করা হয়েছে বলে আলতাফ হোসেন বলেন।