পা'কিস্তানে বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের নিরাপত্তায় ১০ হাজার পু'লিশ, প্রস্তুত থাকবে সাম'রিক কমান্ডো এবং রেঞ্জার্স

অবশেষে পা'কিস্তান সফরে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দল। তাও একবার নয়, তিন ফরম্যাটের ক্রিকেট খেলতে তিনবার পা'কিস্তানে যাবে বাংলাদেশ। আগামী বৃহস্পতিবার পা'কিস্তানের লাহোরে পৌঁছবে টাইগার ক্রিকেটাররা।

এদিকে নিরাপত্তাজনিত কারণে পরিবারের কাছ থেকে অনুমতি না পাওয়ায় এ সফর থেকে নিজের নাম প্রত্যাহার করে নিয়েছেন বাংলাদেশ দলের উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান মুশফিকুর রহীম। এই একই কারণে পা'কিস্তান সফরের ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেয়ার আগে সবদিক বিবেচনা করেছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)।

বাংলাদেশ ক্রিকেট দলকে নিরাপত্তার চাদরে ঘিরে ফেলার জন্য সবধরনের প্রস্তুতি নিচ্ছে পা'কিস্তানের পাঞ্জাব প্রদেশের রাজ্য সরকার। পাঞ্জাবের রাজধানী লাহোরের গাদ্দাফি স্টেডিয়ামে তিন ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজকে সামনে রেখে অ'ভিনব নিরাপত্তা পরিকল্পনা দাঁড় করিয়েছে স্থানীয় প্রশাসন।

এদিকে বাংলাদেশ দলকে নিরাপত্তা দিতে মোতায়েন করা হবে ১০ হাজার পু'লিশ। কোনো সমস্যা হলে দ্রুতগতিতে ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য তৈরি থাকবেন ১৯ জন বিশেষ কর্মক'র্তা, সাম'রিক কমান্ডো এবং রেঞ্জার্স। রাওয়ালপিন্ডি টেস্টের জন্য নিরাপত্তা দেবেন সাম'রিক ব্যাটালিয়ন, রেঞ্জার্স উইং এবং ৪ হাজারের বেশি পু'লিশ সদস্য।

গতকাল শনিবার এ বিষয়ক এক দীর্ঘ বৈঠকে বসেছিল পাঞ্জাব সরকারের আইন-শৃঙ্খলা সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটি। প্রদেশের আইনমন্ত্রী মোহাম্ম'দ বাশারাত রাজা দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্তৃপক্ষকে নির্দেশ দিয়েছেন সময়মতো সকল প্রস্তুতি গুছিয়ে নেয়ার। যাতে করে বাংলাদেশ ক্রিকেট দলকে পূর্ণ নিরাপত্তা দেয়া যায়।

এদিকে লাহোর এবং রাওয়ালপিন্ডিতে শুধু বাংলাদেশ ক্রিকেট দলকেই নয়, খেলা দেখতে আসা সাধারণ দর্শকদের বিষয়টিও মা'থায় রাখার নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। মন্ত্রী বলেছেন, ‘খেলার সময় যেনো রাস্তায় ট্র্যাফিক কম থাকে। যাতে করে খেলা দেখতে আগ্রহী মানুষজন নির্বিঘ্নে মাঠে যেতে পারেন।’

বৈঠকে আরও বলা হয়েছে লাহোরের গাদ্দাফি স্টেডিয়াম ও রাওয়ালপিন্ডি ক্রিকেট স্টেডিয়ামের আশপাশের জায়গাগুলোতে নিশ্ছিদ্র নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে। একইসঙ্গে সাধারণ দর্শকদের যেনো কোনো ঝামেলা না হয় সে ব্যাপারেও সজাগ থাকতে নির্দেশ করা হয়েছে। এছাড়া যে হোটেলে উঠবেন বাংলাদেশের ক্রিকেটাররা, সেখানেও যথাযথ নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিতে বলা হয়েছে।